আজীজুল হক মিলন বিশেষ সংবাদ দাতা বিশ্ব বিপর্যয়ের অংশ হিসাবে এখন বাংলাদেশে ও নোভেল করোনা ভাইরাসের কারণে আতঙ্ক যেমন বাড়ছে তেমনি সচেতনতা বাড়াতে স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করছে বিভিন্ন সংগঠন। মানবিকতায় এগিয়ে আসছেন দেশের তরুণরা ও। নিজেদের নিরাপদ রাখতে ইতোমধ্যেই সরকার ছুটিও ঘোষণা করেছে। ২৬ মার্চ থেকে চলছে লক ডাউন । আক্রান্ত রোগী সংখ্যা ও দিন দিন ভাড়তেই আছে,  প্রাণঘাতী এই করোনা ভাইরাস নিয়ে নানা কাজের অংশ হিসেবে তরুণদের পাশাপাশি সবার এগিয়ে আসা প্রয়োজন। দেশের ক্রান্তিকালে সবারই দাঁড়াতে হয় হাতে হাত ধরে, কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে। প্রস্তুতি নিতে হবে সংকট সমাধানের। মানবতা ডাকছে প্রতিনিয়ত সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে এগিয়ে আসতে হবে স্ব স্ব অবস্থান থেকে।

এই কথা গুলো বললেন   সাবেক সেনা  অফিসার ডাক্তার নাজিম উদ্দীন আহমেদ।। এই  সময়ে  অনেকাংশ ডাক্তার নার্সরা মরনব্যাধী  করোনার  ছৌঁবল থেকে বাচার জন্য নিজের দায়িত্ব  থেকে আড়ালে চলে  যাচ্ছেন।  টিক সেই সময়ে করোনা যূদ্দে নেমেছেন  এই প্রাক্তন সেনা কর্মকর্তা ডাক্তার জনাব নাজিম উদ্দীন আহমেদ  ও তার মেয়ে ডাক্তার সায়লা  সেলিম, বাপ মেয়ে দুজনেই অক্লান্ত পরিশ্রম করে  যাচ্ছেন  টংগী গণস্বাস্থ্য  নগর হাসপাতালে।  দিন রাত মানবতার সেবায় নিয়োজিত নিজেদের জীবন বাজিঁরেখে রাত দিন করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছেন। এবং সেই সাথে তিনি দেশের  সকল  সরকারী বেসরকারী নার্স ও চিকিৎসকদের দেশের এই দুঃসময়ে পাশে থাকার আহবান জানান।  এবং ধর্যসহাকারে তার মোকাবেলা করার   জন্য দেশবাসীর প্রতি   অনুরুধ জানা,,

বিডি সংবাদএকাত্তর   নিউজ টি সেয়ার করুন

SHARE